Logo
আজঃ বুধবার ১৯ জুন ২০২৪
শিরোনাম

১৯ দিনে প্রবাসী আয় এলো ১২ হাজার কোটি টাকা

প্রকাশিত:সোমবার ২২ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ২৮৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:চলতি মাসের প্রথম ১৯ দিনে দেশে রেমিট্যান্স এসেছে ১১২ কোটি ৯২ লাখ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় এ সংখ্যা প্রায় ১২ হাজার ১৯৬ কোটি (প্রতি ডলার ১০৮ টাকা ধরে)।

আজ রোববার বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করে। এতে দেখা যায়, প্রতিদিন গড়ে ৫ কোটি ৯৪ লাখ ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, মে মাসের প্রথম ১৯ দিনে ১১২ কোটি ৯২ লাখ ৪০ হাজার ডলার রেমিট্যান্স দেশে এসেছে। এরমধ্যে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে পৌঁছেছে ১৮ কোটি ৪৬ লাখ ৮০ হাজার ডলার।

আর বিশেষায়িত ব্যাংকের মাধ্যমে ৩ কোটি ৭৯ লাখ ৯০ হাজার মার্কিন ডলার, বেসরকারি ব্যাংকের মাধ্যমে ৯০ কোটি ১৮ লাখ ৬০ হাজার ডলার এবং বিদেশি খাতের ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে ৪৭ লাখ ১০ হাজার মার্কিন ডলার এসেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংক আরও জানায়, মে মাসের ১৩ থেকে ১৯ তারিখ পর্যন্ত দেশে এসেছে ৩৫ কোটি ৫২ লাখ ৭০ হাজার ডলার। আর প্রথম ১২ দিনে ৭৭ কোটি ৩৯ লাখ ৭০ হাজার মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

এ ছাড়া চলতি মাসের প্রথম পাঁচ দিনে দেশে রেমিট্যান্স এসেছিল ২০ কোটি ৭৮ লাখ মার্কিন ডলার। আর ৬ থেকে ১২ মে পর্যন্ত দেশে ৫৬ কোটি ৬১ লাখ ৭০ হাজার মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা।

এর আগে, গত এপ্রিলে ১৬৮ কোটি ৩৪ লাখ ডলার রেমিট্যান্স দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। সবকিছু ঠিক থাকলে আলোচ্য মাসে সেটা অতিক্রম করতে পারে।

চলতি অর্থবছরের মার্চে ২০১ কোটি ৭৭ লাখ ডলার রেমিট্যান্স দেশে এসেছিল। ফেব্রুয়ারিতে আসে ১৫৬ কোটি ১২ লাখ ডলার। জানুয়ারিতে এসেছিল ১৯৫ কোটি ৮৯ লাখ ডলার।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, ঈদের আগে বেশি এলেও ঈদের পরে কমে যাওয়াটা স্বাভাবিক ঘটনা। তবে কোরবানির ঈদকে কেন্দ্র করে আবারও বাড়বে প্রবাসী আয় আসার প্রবাহ।

২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রথম (জুলাই থেকে মার্চ পর্যন্ত) ৯ মাসে মোট রেমিট্যান্স এসেছে ১ হাজার ৬৩০ কোটি মার্কিন ডলার। আগের অর্থবছরে একই সময়ে রেমিট্যান্স এসেছিল এক হাজার ৫২৯ কোটি ডলার।

২০২১-২০২২ অর্থবছরে মোট রেমিট্যান্স এসেছিল ২ হাজার ১০৩ কোটি ১৭ লাখ মার্কিন ডলার। এর আগে ২০২০-২১ অর্থবছরে রেমিট্যান্স আহরণের পরিমাণ ছিল ২ হাজার ৪৭৭ কোটি ৭৭ লাখ মার্কিন ডলার।


আরও খবর



ইরানের প্রেসিডেন্ট রাইসিকে উদ্ধারে বিশেষজ্ঞ দল পাঠাচ্ছে রাশিয়া

প্রকাশিত:সোমবার ২০ মে ২০24 | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১৫১জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টার। নিখোঁজ হওয়া ইরানের এই প্রেসিডেন্টের ভাগ্যে কী ঘটেছে তা এখন পর্যন্ত জানা যায়নি। এমন অবস্থায় ইব্রাহিম রাইসিকে অনুসন্ধানে সহায়তার জন্য উদ্ধারকারী দল পাঠাচ্ছে রাশিয়া।

সোমবার (২০ মে) এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

সংবাদমাধ্যমটি বলছে, প্রেসিডেন্ট রাইসির সন্ধানে সহায়তার জন্য রাশিয়া ইরানে একটি উদ্ধারকারী দল পাঠাচ্ছে বলে রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে। আরআইএ নভোস্তি জানিয়েছে, রাশিয়ার এই দলটিতে ৪৭ জন বিশেষজ্ঞ উদ্ধারকারী, বেশ কয়েকটি যানবাহন যা উঁচু-নিচু ও অসমতল ভূমিতে চলতে পারে এবং একটি হেলিকপ্টার রয়েছে।

সংবাদমাধ্যমটি আরও বলেছে, উদ্ধারকারী এই সরঞ্জামগুলো এখন লোড করা হচ্ছে এবং পরে ইরানের তাবরিজ শহরে সেটি পাঠানো হবে। দুর্ঘটনার আগে ইরানের প্রেসিডেন্ট এই শহরেই গিয়েছিলেন।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভকে উদ্ধৃত করে সংস্থাটি জানিয়েছে, ‘হেলিকপ্টার এবং উদ্ধারকারী দলটির সবাই উচ্চ উচ্চতায় সবচেয়ে কঠিন কাজ করতে প্রস্তুত। কুয়াশাসহ আবহাওয়া পরিস্থিতি বিবেচনা করে অনুসন্ধান এবং উদ্ধার অভিযান পুনরায় শুরু হওয়ার সাথে সাথে আমাদের বিশেষজ্ঞরা সেই উদ্ধার প্রচেষ্টায় যোগ দেবেন।

অন্যদিকে সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট রাইসির অনুসন্ধান প্রচেষ্টায় সহায়তা করার জন্য রাশিয়া ৪৭ জন উদ্ধারকারী বিশেষজ্ঞ এবং একটি হেলিকপ্টার ঘটনাস্থলে পাঠাচ্ছে বলে রাশিয়ার জরুরি পরিস্থিতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে।

ইরানের তাবরিজের উদ্দেশ্যে যাত্রা করার আগে রাশিয়ার ঝুকভস্কি বিমানবন্দরে বিশেষ এই সরঞ্জামগুলো লোড করা হচ্ছে বলেও বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

এর আগে রোববার একটি বাঁধ উদ্বোধন করে ইরানি প্রদেশ পূর্ব আজারবাইজানের তারবিজে যাচ্ছিলেন প্রেসিডেন্ট রাইসি। এই সময় তার সঙ্গে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও অন্যান্য উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা ছিলেন। তারবিজে ফেরার পথেই হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হয়।

ইরানি সংবাদমাধ্যমগুলোতে বলা হয়েছে, রোববার স্থানীয় সময় দুপুর ১টা ৩০ মিনিটের দিকে হেলিকপ্টারটি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। সে হিসেবে এখন পর্যন্ত ১৮ ঘণ্টারও বেশি সময় পেরিয়ে গেছে।


আরও খবর



সৈয়দপুর প্রেসক্লাবে রতন সভাপতি জিকরুল হক সাধারণ সম্পাদক

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ৯১জন দেখেছেন

Image

জহুরুল ইসলাম খোকন সৈয়দপুর( নীলফামারী) প্রতিনিধি:নীলফামারীর সৈয়দপুর প্রেসক্লাবের দ্বিবার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার বিকেলে (১ জুন) ওই নির্বাচন উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে আবু-বিন আজাদ রতন সভাপতি  ও জিকরুল হক  সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচন শেষে ভোট গণনার পর ফলাফল ঘোষণা করেন প্রিজাইডিং অফিসারের পক্ষে সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার মো. আব্দুল আজিজ।

নির্বাচনে অন্যান্য পদে নির্বাচিত হয়েছেন সহ-সভাপতি পদে দৈনিক ইনিকিলাবের নজির হোসেন নজু (বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়), সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে আনোয়ার হোসেন (খবরপত্র), সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক হীরা শর্মা (উত্তরবাংলা), কোষাধ্যক্ষ পদে গোপাল চন্দ্র রায় (বিনা প্রিাকদ্বন্দ্বিতায়), দফতর সম্পাদক পদে মিজানুর রহমান মিলন ও কার্যকরী সদস্য পদে কাজী জাহিদ (সংবাদ), আলহাজ্ব মকসুদ আলম ( সম্পাদক নীলফামারী চিত্র), সাদিকুল ইসলাম (নাগরিক টিভি) ও নজরুল ইসলাম (সময়ের আলো)।

এই নির্বাচনে মোট ৩১ জন ভোটারের মধ্যে ২৯ জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। অনেক আলোচনা-সমালোচনার প্রেসক্লাবের এই নির্বাচনে ধারাবাহিকতা সৃষ্টি হলো মনে করেন সৈয়দপুরের কর্মরত সাংবাদিকরা।

সৈয়দপুর প্রেসক্লাবের নব-নির্বাচিত কমিটিকে অভিনন্দন জানিয়েছেন নীলফামারী-৪ (সৈয়দপুর-কিশোরগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সিদ্দিকুল আলম, সৈয়দপুর পৌরসভার মেয়র রাফিকা আকতার জাহান, সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান রিয়াদ আরফান সরকার রানা, ভাইস চেয়ারম্যান মহসিন আলী মন্ডল মিঠু, নীলফামারী প্রেসক্লাবের সভাপতি মঞ্জুরুল আলম সিয়াম, সাধারণ সম্পাদক হাসান রাব্বী প্রধান প্রমুখ।


আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪




মান্দায় বিদ্যালয়ের টিন শিক্ষক ও দপ্তরীর পেটে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৫ জুন ২০২৪ | ৯২জন দেখেছেন

Image

এম এম হারুন আল রশীদ হীরা; নওগাঁ:নওগাঁর মান্দায় নিয়ম বহির্ভূত ভাবে রেজুলেশন ছাড়াই "উপজেলার ২৫ নং মান্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের" টিন বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মান্দা সদর ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য জিন্নাতুন নেছা ২৬মে অভিযুক্ত দুই শিক্ষকসহ দপ্তরীর বিরুদ্ধে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা সহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।অভিযুক্ত শিক্ষকরা হলেন, অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা সুরুচী রানী হাওলাদার, সহকারি শিক্ষক খায়রুল আলম ও দপ্তরী সাইফুল ইসলাম। 

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, কয়েক মাস পূর্বে উপজেলার ২৫ নং মান্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মাণের সময় পুরাতন ভবনটি ভেঙে ফেলার কারণে শিক্ষার্থীদের পাঠদানের সুবিধার জন্য ঢেউটিন দিয়ে তিনটি রুম তৈরি করা হয়েছিল। নতুন ভবনের কাজ শেষ হয়ে গেলে, টিনের তৈরি তিনটি কক্ষ পরিত্যাক্ত হয়ে পড়ে। এমতাবস্থায় কয়েকদিন পূর্বে অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ও সহকারি শিক্ষক পরিত্যাক্ত শ্রেণী কক্ষের টিনগুলো গোপনে বিক্রি করে দেয়। বিষয়টি জানা জানি হলে প্রধান শিক্ষিকা নিজেকে বাঁচাতে এবং ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে দেখানোর জন্য রাতারাতি কিছু পুরাতন টিন ক্রয় করেন।

স্কুলের টিন ক্রেতা ভাঙ্গারী ব্যাবসায়ী মামুন বলেন, শিক্ষক খায়রুলের কাছ থেকে  সাড়ে ৩ মন টিন ৮ হাজার টাকায় ক্রয় করেছিলাম। এর পর হঠাৎ করে আমাকে  পুরাতন টিন কেনার জন্য খায়রুল মাস্টার ২৫০০ টাকা দেয় । আমি পুরাতন টিন না পেয়ে তাকে টাকা ফেরত দিয়েছি। তাদের জন্য আমি মিথ্যা বলে ঝামেলায় জড়াতে চাইনা।

প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষিকা সুরুচী রানী হাওলাদার বলেন, নিয়ম মেনে টিন বিক্রি করা হয়েছে। বিক্রিত টিনের টাকা সভাপতির নিকট জমা রাখা হয়েছে বলে তিনি আরও বলেন, আপনাদের যা করার করতে পারেন। এ বিষয়ে আপনাদের আর কিছু বলতে চাইনা।

টিন বিক্রির বিষয়টি স্কুলের সভাপতি শামীম হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ৭ থেকে ৮ হাজার টাকার টিন বিক্রি করে সেই টাকা ব্যাংকে জমা রাখা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কেউ এবিষয়ে কিছু জানেন কিনা এমন প্রশ্ন তিনি এড়িয়ে যান।

এ ব্যাপারে দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারি শিক্ষা কর্মকর্তা এ্যাডওয়ার্ড সরেন বলেন, টিনগুলো গুছিয়ে রাখতে বলা হয়েছিল। টিন বিক্রিয় করে থাকলে  তিনি অপরাধ করেছেন। টিন বিক্রির বিষয়ে আমি অবগত নই।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল বাশার শামসুজ্জামান বলেন, রেজুলেশন বা কোন প্রকার নিলাম ছাড়াই টিন গোপনে বিক্রিয় করার বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি । ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হবে। সত্যতা পাওয়া গেলে অবশ্যই জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪




রাণীশংকৈলে সেই স্বর্ণের মাটির স্তুপ পরিক্ষা ও স্ক্যান করার নির্দেশে দুই সদস্যের কমিটি গঠন

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৯৪জন দেখেছেন

Image
মাহাবুব আলম, রাণীশংকৈল(ঠাকুরগাঁও)প্রতিনিধি:ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার বাচোর ইউনিয়নের কাতিহার রাজোর এলাকার আরবিবি ইট ভাটার স্তুপ করা মাটি পরীক্ষা,অনুসন্ধান ও স্ক্যান করার নির্দেশসহ দুই সদস্যের একটি কমিটি করা হয়েছে। গত ২ জুন বাংলাদেশ ভুতাত্বিক জরিপ অধিদপ্তর পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন শাখা ঢাকার ভুতত্ব পরিচালক কামাল হোসেন স্বাক্ষরিত এক পত্রে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে। 

স্বর্ণ পাওয়ার বিষয়টি গুরত্বসহকারে নিয়ে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবি মেহেদী হাসান বাংলাদেশ ভুতাত্বিক জরিপ অধিদপ্তরে আরবিবি ইটভাটার মাটির পূর্বের স্থানসহ বর্তমান স্থান পরীক্ষা,অনুসন্ধান ও মাটি স্ক্যানের আবেদন করে। সেই পেক্ষিতে এ অফিস আদেশ দেয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। চিঠিতে উল্লেখ্য করা হয়েছে, সহকারী পরিচালক ভুতত্ব আনোয়ার সাদাৎ মুহাম্মদ সায়েম ও মোহাম্মদ আল রাজীকে আগামী ৩জুন থেকে ৫জুন অথবা প্রকৃত যাত্রার তারিখ হতে তিনদিনের মধ্যে প্রকৃত ঘটনার তথ্যসহ প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। 

এর আগে আজকের পত্রিকাসহ বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় ইটভাটায় স্বর্ণের খোজে কোদাল নিয়ে হুমড়ি খেয়ে পড়েছে হাজারো মানুষ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ হয়। এর পরে দিনে রাতে ইটভাটার মাটির স্তুপে অতিরিক্ত মানুষের সমাগম হওয়ায়। আইনশৃঙ্খলা অবনতির আশঙ্কায় গত ২৫ মে ইটভাটায় ১৪৪ ধারা জারী করে রাণীশংকৈল উপজেলা প্রশাসন। এরপর থেকে সেখানে পুলিশি পাহারায় চৌকি বসানো হয়। এতে সাধারণ মানুষ ইটভাটায় ভিড়তে পারে না। বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবি মেহেদী হাসান বলেন, যেহেতু ওই ইটভাটার মাটি ঐতিহাসিক এলাকা থেকে কাটা হয়েছে। এবং মানুষের মুখে মুখে স্বর্ণ পাওয়ার বিষয়টি চাউর হয়েছে। তাই রাষ্ট্রীয় ভাবে এটি পরীক্ষা নিরীক্ষা করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। যদি কোন ধরনের স্বর্ণ পাওয়া যায়। তাহলে সেটি রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা হবে।

রাণীশংকৈল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) রকিবুল হাসান বলেন, বাংলাদেশ ভুতাত্বিক জরিপ অধিদফতর এর নির্দেশে মাটির পরীক্ষা করা হবে বলে জানতে পেরেছি। তারা আসলে উপজেলা প্রশাসন থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।

আরও খবর



তিতাস গ্যাস আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন ভবন, কম্পিউটার ল্যাব উদ্বোধন

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১১৯জন দেখেছেন

Image

নাজমুল হাসানঃতিতাস গ্যাস আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয়ের সম্প্রসারিত ভবন (৪র্থ তলা পূর্বাংশ) ও কম্পিউটার ল্যাব-এর শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।বুধবার১২ জুন ডেমরাস্থ তিতাস গ্যাস আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয়ের সম্প্রসারিত ভবন (৪র্থ তলা পূর্বাংশ) ও কম্পিউটার ল্যাব -এর শুভ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিসন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন পিএলসি'র ব্যবস্থাপনা পরিচালক,প্রকৌঃ মোঃ হারুনুর রশীদ মোল্লাহ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কোম্পানির মহাব্যবস্থাপক/উপ-ব্যাবস্থাপনা পরিচালক (ডিএমডি) রাজীব কুমার সাহা,মহাব্যবস্থাপক (অতিরিক্ত দায়িত্ব) তওহিদুল ইসলাম, মহাব্যবস্থাপক  (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন ডিভিশন) সত্যজিৎ ঘোষ, মহাব্যবস্থাপক/উপ-ব্যাবস্থাপনা পরিচালক (ডিএমডি) প্রকৌশলী মোঃ আনিসুর রহমান, মহা ব্যবস্থাপক (আইসিটি) মোঃ তারিক আনিস খান। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিতাস গ্যাসের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক হারুনুর রশিদ মোল্লাহ বলেন, "শিক্ষার্থীরা যেন এই বিশ্বায়নের যুগে তথ্যপ্রযুক্তির জ্ঞানের আলোয় আলোকিত হয়ে মাননীয়  প্রধানমন্ত্রী  ঘোষিত ২০৪১ সালের স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের সহযোদ্ধা হতে পারে সেজন্য তিতাস গ্যাস আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে কম্পিউটার ল্যাব চালু করে প্রতিটি কম্পিউটারের সঙ্গে  ইন্টারনেট সংযোগ দেয়া হয়েছে, নিজস্ব ওয়েব সাইট চালু করা হয়েছে এবং  ল্যাব চালাতে যা দরকার এজন্য জিএম আইসিটি কে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। স্মার্ট জাতি গঠনে কম্পিউটার ল্যাব জরুরি। আমরা সেটা বাস্তবায়ন করলাম। এখন স্মার্ট নাগরিক তৈরি করার দায়িত্ব অত্র প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকগনের।আশা করি তারা সেটা পারবেন।"

এ সময় তিতাসের এমডি শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে আরো দিকনির্দেশনা মূলক বক্তব্য রাখেন।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন তিতাস গ্যাস আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ ওবায়দুল ইসলাম সহ কোম্পানির উর্ধ্বতন কর্মকর্তা-শিক্ষকবৃন্দ ও তিতাস গ্যাস আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা পরিষদের সদস্য এবং শিক্ষার্থীরা।উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন বিদ্যালয়ের সিনিয়র ধর্মীয় শিক্ষক হাফেজ মোঃ নুরুল হক।


আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪