English Version

শপথ নিয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সাথে বেইমানী করনা

প্রকাশিতঃ মার্চ ১৩, ২০১৯, ১১:৫৭ পূর্বাহ্ণ


 

দীর্ঘ ২৮ বছর ১০ মাস পর অনুষ্ঠিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচনে জয়ী ছাত্রলীগ নেতাদের শপথ না নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন সংগঠনটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম।
গত নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে একটি স্ট্যাটাসে এ আহ্বান জানান সাবেক ছাত্রলীগের নেতা। ২৮ বছর কেন প্রয়োজনে ২৮০ বছর ডাকসু বন্ধ থাকলেও ছাত্রলীগকে শপথ নিতে বারণ করেছেন নাজমুল।

সোমবার (১১ মার্চ) অনুষ্ঠিত ডাকসু নির্বাচনে ২৫টি পদের মধ্যে ছাত্রলীগ পেয়েছে ২৩টি। বাকি দুটি পদে অর্থাৎ কোটা আন্দোলনের নেতা ও ছাত্র অধিকার রক্ষা পরিষদ প্যানেলের প্রার্থী নুরুল হক নুর সহসভাপতি (ভিপি) পদে জয় পেয়েছে। কোটা সংস্কার আন্দোলনের অপর জয়ী প্রার্থী হলেন সমাজসেবা সম্পাদক পদে আখতার হোসেন।

অবশ্য হল সংসদগুলোতে ছাত্রলীগের জয়জয়কার থাকলেও নারী হলের কয়েকটিতে ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের প্যানেল জয়ী হয়েছে।

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক শোভনকে ১৯৩৩ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে ডাকসুর সর্বোচ্চ পদ ভিপি হয়েছেন কোটা আন্দোলনের নেতা নুর। ভোটে নুর পেয়েছেন ১১ হাজার ৬২ ভোট। আর তার শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বী রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন পেয়েছেন ৯ হাজার ১২৯ ভোট। নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক (জিএস) পদে জয়লাভ করেছেন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। এছাড়া সহ-সাধারণ সম্পাদক (এজিএস) নির্বাচিত হয়েছেন ঢাবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইন।
এছাড়া মুক্তিযুদ্ধ সম্পাদক সাদ বিন কাদের, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক আরিফ ইবনে আলী, কমনরুম ও ক্যাফেটরিয়া সম্পাদক বিএম লিপি আক্তার, আন্তর্জাতিক সম্পাদক শাহরিমা তানজিনা অর্নি, সাহিত্য মাজহারুল কবির শয়ন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আসিফ তালুকদার, ক্রীড়া সম্পাদক শাকিল আহামদ তানভীর, ছাত্র পরিবহন সম্পাদক শামস ই নোমান বিজয়ী হয়েছেন।

সদস্যদের মধ্যে যারা বিজয়ী হয়েছেন তারা হলেন- চিবল সাংমা, নজরুল ইসলাম, রাকিবুল হাসান, রাকিবুল ইসলাম ঐতিহ্য, তানভীর হাসান সৈকত, রাইসা নাসের, সাবরিনা ইতি, ফরিদা পারভীন, নিপু ইসলাম তন্বী, হাইদার মোহাম্মদ জিতু, তিলোত্তমা শিকদার, জুলফিকার আলম রাসেল এবং মাহমুদুল হাসান।

ডাকসুর ভিপি পদে নুরকে মেনে নিতে পারছেন ছাত্রলীগের এক সময়কার দাপুটে নেতা সিদ্দিকী নাজমুল আলম। তিনি নুরকে ছাত্রশিবির কর্মী হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন। নুরকে নিয়ে ছাত্র সংসদে যেতে অনুজদের বারণ করেছেন নাজমুল। প্রয়োজনে আরও ২৮০ বছর ডাকসু বন্ধ থাকলেও শপথ না নিতে আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে, ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম কোনভাবেই শোভনের পরাজয়কে মেনে নিতে পারছেন না।

ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলমের ফেসবুক স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

ফেসবুকে নাজমুল লিখেন, ‘হতে পারে শোভনকে তুমি কম পছন্দ করো, কিন্তু শোভন কিন্তু ছাত্রলীগের চেয়ার এবং তোমাদের মিছিলের সাথী। ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে ডাকসুতে নির্বাচিতদের বলব জামায়াত-শিবির সাথে নিয়ে ছাত্র সংসদের শপথ নিও না। প্রয়োজন হলে ২৮ বছর না আরও ২৮০ বছর ডাকসু বন্ধ থাকুক। প্রাণের ক্যাম্পাসের নেতৃত্ব ওই সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর হাতে থাকবে এটা হতে পারে না। বঙ্গবন্ধুর রক্ত ও আদর্শের সাথে বেঈমানি করো না।’

দীর্ঘ ২৮ বছর ১০ মাস পর অনুষ্ঠিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচনে জয়ী ছাত্রলীগ নেতাদের শপথ না নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন সংগঠনটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম।

মঙ্গলবার (১২ মার্চ) নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে একটি স্ট্যাটাসে এ আহ্বান জানান সাবেক ছাত্রলীগের নেতা। ২৮ বছর কেন প্রয়োজনে ২৮০ বছর ডাকসু বন্ধ থাকলেও ছাত্রলীগকে শপথ নিতে বারণ করেছেন নাজমুল।

সোমবার (১১ মার্চ) অনুষ্ঠিত ডাকসু নির্বাচনে ২৫টি পদের মধ্যে ছাত্রলীগ পেয়েছে ২৩টি। বাকি দুটি পদে অর্থাৎ কোটা আন্দোলনের নেতা ও ছাত্র অধিকার রক্ষা পরিষদ প্যানেলের প্রার্থী নুরুল হক নুর সহসভাপতি (ভিপি) পদে জয় পেয়েছে। কোটা সংস্কার আন্দোলনের অপর জয়ী প্রার্থী হলেন সমাজসেবা সম্পাদক পদে আখতার হোসেন।

অবশ্য হল সংসদগুলোতে ছাত্রলীগের জয়জয়কার থাকলেও নারী হলের কয়েকটিতে ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের প্যানেল জয়ী হয়েছে।

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক শোভনকে ১৯৩৩ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে ডাকসুর সর্বোচ্চ পদ ভিপি হয়েছেন কোটা আন্দোলনের নেতা নুর। ভোটে নুর পেয়েছেন ১১ হাজার ৬২ ভোট। আর তার শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বী রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন পেয়েছেন ৯ হাজার ১২৯ ভোট।

নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক (জিএস) পদে জয়লাভ করেছেন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। এছাড়া সহ-সাধারণ সম্পাদক (এজিএস) নির্বাচিত হয়েছেন ঢাবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইন।

এছাড়া মুক্তিযুদ্ধ সম্পাদক সাদ বিন কাদের, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক আরিফ ইবনে আলী, কমনরুম ও ক্যাফেটরিয়া সম্পাদক বিএম লিপি আক্তার, আন্তর্জাতিক সম্পাদক শাহরিমা তানজিনা অর্নি, সাহিত্য মাজহারুল কবির শয়ন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আসিফ তালুকদার, ক্রীড়া সম্পাদক শাকিল আহামদ তানভীর, ছাত্র পরিবহন সম্পাদক শামস ই নোমান বিজয়ী হয়েছেন।

সদস্যদের মধ্যে যারা বিজয়ী হয়েছেন তারা হলেন- চিবল সাংমা, নজরুল ইসলাম, রাকিবুল হাসান, রাকিবুল ইসলাম ঐতিহ্য, তানভীর হাসান সৈকত, রাইসা নাসের, সাবরিনা ইতি, ফরিদা পারভীন, নিপু ইসলাম তন্বী, হাইদার মোহাম্মদ জিতু, তিলোত্তমা শিকদার, জুলফিকার আলম রাসেল এবং মাহমুদুল হাসান।

ডাকসুর ভিপি পদে নুরকে মেনে নিতে পারছেন ছাত্রলীগের এক সময়কার দাপুটে নেতা সিদ্দিকী নাজমুল আলম। তিনি নুরকে ছাত্রশিবির কর্মী হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন। নুরকে নিয়ে ছাত্র সংসদে যেতে অনুজদের বারণ করেছেন নাজমুল। প্রয়োজনে আরও ২৮০ বছর ডাকসু বন্ধ থাকলেও শপথ না নিতে আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে, ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম কোনভাবেই শোভনের পরাজয়কে মেনে নিতে পারছেন না।

ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলমের ফেসবুক স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

ফেসবুকে নাজমুল লিখেন, ‘হতে পারে শোভনকে তুমি কম পছন্দ করো, কিন্তু শোভন কিন্তু ছাত্রলীগের চেয়ার এবং তোমাদের মিছিলের সাথী। ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে ডাকসুতে নির্বাচিতদের বলব জামায়াত-শিবির সাথে নিয়ে ছাত্র সংসদের শপথ নিও না। প্রয়োজন হলে ২৮ বছর না আরও ২৮০ বছর ডাকসু বন্ধ থাকুক। প্রাণের ক্যাম্পাসের নেতৃত্ব ওই সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর হাতে থাকবে এটা হতে পারে না। বঙ্গবন্ধুর রক্ত ও আদর্শের সাথে বেঈমানি করো না।’

প্রকাশকঃ
মোঃ মামুনুর হাসান (টিপু)

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক:
খন্দকার আমিনুর রহমান

৫০/এফ, ইনার সার্কুলার, (ভি আই পি) রোড- নয়া পল্টন ,ঢাকা- ১০০০।
ফোন: ০২-৯৩৩১৩৯৪, ৯৩৩১৩৯৫, নিউজ রুমঃ ০১৫৩৫৭৭৩৩১৪
ই-মেইল: [email protected], [email protected]

.::Developed by::.
Great IT