English Version

এ যেন যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের ধ্বংসস্তূপের নমুনা

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ১১, ২০১৮, ৯:৫৪ পূর্বাহ্ণ


ডেস্ক নিউজ:আজিমপুর পুরাতন কবরস্থানের দক্ষিণ গেট বাসস্ট্যান্ডের দিকে এগিয়ে যেতে ভিকারুননিসা নুন স্কুলের বিপরীতে উত্তর দিকে তাকালে আজিমপুর সরকারি কোয়ার্টারের দিকে পথচারীদের দৃষ্টি পড়ে। পথচারীদের এদিকে দৃষ্টি দেয়ার কারণ, সেখানকার চারতলা একটি ভবনের দরজা নেই, জানালাও নেই। যেখানে সেখানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে রড, ইট, পাথর, বালু। দৃশ্যটি দেখে মনে হবে এ যেন বোমার আঘাতে যুদ্ধবিধ্বস্ত কোনো দেশের ভবন।

এলাকাবাসী জানিয়েছেন, গত দেড় মাসেরও কম সময়ের মধ্যে দুটি চারতলা ভবন ভেঙে মাটির সঙ্গে মিশিয়ে ফেলা হয়েছে। এখনও চলছে ভবন ভাঙার কাজ।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আজিমপুর সরকারি কলোনির ৪৩/৪৪ নম্বর দুটি ভবনে তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের ২৪টি পরিবার বাস করতো। বহু বছরের জীর্ণশীর্ণ ভবন দুটি ভেঙে সেখানে বিচারকদের জন্য কোয়ার্টার নির্মিত হবে। ইতোমধ্যেই ওই দুটি ভবনে বসবাসকারী কর্মচারীদেরকে দক্ষিণ দিকে নবনির্মিত ২০ তলা ভবনে ফ্ল্যাট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

বুধবার (১০ অক্টোবর) সরেজমিনে পরিদর্শনকালে দেখা যায়, ইটের গাঁথুনির দুটি চারতলা ভবনের একটি ইতোমধ্যেই ভেঙে ফেলা হয়েছে। আরেকটিতে ভাঙার কাজ চলছে। ভেঙে ফেলা ভবনের নিচে ২০/৩০ ফুট পর্যন্ত হাজার হাজার ইট পাওয়া যাচ্ছে। কয়েকজন কর্মচারীকে ইঞ্জিনচালিত যন্ত্র দিয়ে দেয়াল ভাঙতে দেখা যায়।

তবে ঈদের আগে থেকে ভাঙার কাজ শুরু হলেও কবে নাগাদ ভাঙার কাজ শেষ হবে কিংবা জাজেজ কোয়ার্টার নির্মিত হবে, তা নিশ্চিতভাবে জানা সম্ভব হয়নি।

সরকারি একজন নিরাপত্তারক্ষী জানান, ভবন দুটি ভেঙে ফেলে ২০ তলাবিশিষ্ট জাজেজ কোয়ার্টার হবে। এ কারনে পুরাতন ভবন ভেঙে ফেলা হয়েছে। তবে ভবন দুটিতে খুব দ্রুত নির্মাণ কাজ শুরু হবে বলে ওই নিরাপত্তাকর্মী মনে করেন। এর আগেও পুকুর ভরাট করে কর্মকর্তাদের জন্য দ্রুত ভবন নির্মাণ করতে দেখেছেন বলে তিনি জানান।

প্রকাশকঃ
মোঃ মামুনুর হাসান (টিপু)

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক:
খন্দকার আমিনুর রহমান

৫০/এফ, ইনার সার্কুলার, (ভি আই পি) রোড- নয়া পল্টন ,ঢাকা- ১০০০।
ফোন: ০২-৯৩৩১৩৯৪, ৯৩৩১৩৯৫, নিউজ রুমঃ ০১৫৩৫৭৭৩৩১৪
ই-মেইল: [email protected], [email protected]

.::Developed by::.
Great IT