English Version

মানবজমিনের সম্পাদকসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ১, ২০১৮, ১০:১৩ অপরাহ্ণ


‘যুবলীগ নেতার চাঁদা দাবি, আঞ্জুমানের ভবন নির্মাণ বন্ধ’ শিরোনামে দৈনিক মানবজমিন পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদটি মিথ্যা ও ভিত্তিহীন দাবি করে সম্পদকসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মানহানির অভিযোগে মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের দপ্তর সম্পাদক নালিশী মামলা ঠুকেছেন।

ওই অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত করে সাত কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য তেজগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত (ওসি) কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ঢাকার মহানগর হাকিম এ এইচ এম তোয়াহা বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করেন। মামলা আমলে নেওয়ার আগে অভিযোগ তদন্তপূর্বক ওই সময়ের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য তেজগাঁও থানার ওসি বরাবর ওই আদেশ দেন।

মামলায় পত্রিকার সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী ছাড়াও পত্রিকার প্রকাশক মাহবুবা চৌধুরী ও প্রতিবেদক রুদ্র মিজানকে আসামি করেছেন বাদী মো. এমদাদুল হক।

বাদীর আইনজীবী আফরোজা শাহনাজ পারভীন হিরা বিচারকের দেওয়া আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার আর্জিতে বলা হয়, ২৭ সেপ্টেম্বর দৈনিক মানবজমিন পত্রিকার প্রথম পাতায় ‘যুবলীগ নেতার চাঁদা দাবি, আঞ্জুমানের ভবন নির্মাণ বন্ধ’ শিরোনামে সংবাদ ছাপা হয়েছে। প্রকাশিত সংবাদে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট ও তার লোকজন কর্তৃক বেওয়ারিশ লাশ দাফন সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান আঞ্জুমান মুফিদুল ইসলামের কাছে চাঁদা দাবির কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

বিরোধী পক্ষের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে সংবাদটি ছাপা হয়েছে। সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন দাবি করে প্রকাশিত ওই সংবাদে যুবলীগ, বাদী ও ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটের মানহানি হয়েছে। যার পরিমাণ ২০ কোটি টাকা।

প্রসঙ্গত, পত্রিকায় ছাপা হওয়া সংবাদে বলা হয়েছে, আঞ্জুমান মুফিদুল ইসলাম সবার কাছে পরিচিত বেওয়ারিশ লাশ দাফনের প্রতিষ্ঠান হিসেবে। এ কাজ ছাড়াও এতিম শিশুদের লালন-পালনসহ নানা দাতব্য কাজ করে আসছে সেবামূলক এ সংস্থাটি। বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের দান আর অনুদানে চলে এর কার্যক্রম।

অথচ মানুষের দানের সেই অর্থ থেকেই চাঁদা দাবি করেছেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট ও তার লোকজন। শুধু তাই নয়, চাঁদা না পাওয়ায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে আঞ্জুমানের নিজস্ব ভবন নির্মাণের কাজ। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরাও।

অভিযোগ পৌঁছেছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পর্যন্ত। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করে বিষয়টি তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

মামলা দায়েরের পর আদালতে বাদীর পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী আবদুর রহমান হাওলাদার। গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে আসামিদের ধরে জেল হাজতে আটক রাখার আবেদন জানান এবং কৃত অপরাধ প্রমাণ হলে তাদের সর্বোচ্চ সাজা দেওয়ার প্রার্থনা করেন তিনি।

প্রকাশকঃ
মোঃ মামুনুর হাসান (টিপু)

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক:
খন্দকার আমিনুর রহমান

৫০/এফ, ইনার সার্কুলার, (ভি আই পি) রোড- নয়া পল্টন ,ঢাকা- ১০০০।
ফোন: ০২-৯৩৩১৩৯৪, ৯৩৩১৩৯৫, নিউজ রুমঃ ০১৫৩৫৭৭৩৩১৪
ই-মেইল: [email protected], [email protected]

.::Developed by::.
Great IT