Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

১০৬ কোটি ডলার রেমিট্যান্স এল চলতি মাসে

প্রকাশিত:রবিবার ২০ নভেম্বর ২০22 | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ৩১১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: সরকারের নানা উদ্যোগের ফলে চলতি নভেম্বর মাসের প্রথম ১৮ দিনে ১০৫ কোটি ৯৯ লাখ (১.০৫ বিলিয়ন) মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। দেশীয় মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকা।

আজ রোববার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পরিসংখ্যান বিভাগের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। চলমান ধারা অব্যাহত থাকলে মাস শেষে প্রবাসী আয়ের পরিমাণ ১৭৬ কোটি ডলার ছাড়াবে বলে মনে করছেন খাত সংশ্লিষ্টরা। তারা বলছেন, বৈধপথে রেমিট্যান্স আনতে বিভিন্ন শর্ত শিথিল, চার্জ ফি মওকুফসহ বেশ কিছু উদ্যোগ নিয়েছে সরকার ও কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

নভেম্বরের প্রথম ১৮ দিনে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন পাঁচ বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে রেমিট্যান্স এসেছে ১৮ কোটি ৮২ লাখ মার্কিন ডলার। বেসরকারি ব্যাংকের মাধ্যমে রেমিট্যান্স এসেছে ৮৪ কোটি ৩৯ লাখ মার্কিন ডলার। বিদেশি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ৩৭ লাখ মার্কিন ডলার, আর বিশেষায়িত একটি ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে দুই কোটি ৩৯ লাখ মার্কিন ডলার।

চলতি মাসের প্রথম ১৮ দিনে সবচেয়ে বেশি রেমিট্যান্স এসেছে ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে। ব্যাংকটির মাধ্যমে ২৭ কোটি ২২ লাখ ডলার এসেছে। এরপর অগ্রণী ব্যাংকে এসেছে ৭ কোটি ৩৬ লাখ, ডাচ্–বাংলা ব্যাংকে এসেছে ৬ কোটি ৬৪ লাখ, সোনালী ব্যাংকে এসেছে ৬ কোটি ৪২ লাখ এবং আল আরাফা ইসলামী ব্যাংকে এসেছে ৫ কোটি ডলার প্রবাসী আয়। তবে সরকারি বিডিবিএল, রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক, বেঙ্গল কমার্শিয়াল ব্যাংক, কমিউনিটি ব্যাংক, বিদেশি হাবিব ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তান, স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার মাধ্যমে কোনো রেমিট্যান্স আসেনি।


আরও খবর



রাজধানী ঢাকার বাতাস আজ ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৭৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আজ রাজধানী ঢাকার বাতাসের মান ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’। একই অবস্থানে রয়েছে পাকিস্তানের লাহোর এবং ভারতের দিল্লি। শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টা ১৭ মিনিটে বায়ুর মান পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সের (আইকিউএয়ার) সূচক থেকে জানা গেছে এ তথ্য।

তালিকার শীর্ষে অবস্থান করা ঢাকার বায়ুর মানের স্কোর হচ্ছে ২৩৯। এর অর্থ দাঁড়ায় এখানকার বায়ু ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’।

দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে পাকিস্তানের লাহোর। এই শহরটির স্কোর হচ্ছে ২২৩ অর্থাৎ সেখানকার বায়ুর মানও ‘ খুবই অস্বাস্থ্যকর’।

এদিকে ভারতের রাজধানী দিল্লির দূষণ স্কোর ২১৩ অর্থাৎ সেখানকার বায়ুর মানও ‘ খুবই অস্বাস্থ্যকর’।

১০১ থেকে ১৫০ এর মধ্যে হলে বাতাসের মান “সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর”, ১৫০ থেকে ২০০ এর মধ্যে একিউআই স্কোরকে “অস্বাস্থ্যকর” বলে মনে করা হয়। ২০১ থেকে ৩০০ এর মধ্যে “খুব অস্বাস্থ্যকর” বলা হয়, ৩০১+ একিউআই স্কোরকে “ঝুঁকিপূর্ণ” হিসেবে বিবেচনা করা হয়, যা বাসিন্দাদের জন্য গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করে।


আরও খবর



সাংবাদিকতার যোগ্যতা নির্ধারণে সাংবাদিকদের দাবির সাথে সরকার একমত: তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮১জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার, স্টাফ  রিপোর্টার : সাংবাদিকতার যোগ্যতা নির্ধারণে সাংবাদিকদের দাবির সাথে সরকার একমত বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত।
 
বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর শাহবাগে বিসিএস প্রশাসন একাডেমি মিলনায়তনে 'স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে গণমাধ্যমের ভূমিকা' শীর্ষক কর্মশালার প্যানেল আলোচনা পর্বে অংশ নিয়ে প্রতিমন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

বিসিএস প্রশাসন একাডেমির সহযোগিতায় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এ কর্মশালা আয়োজন করে। বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরামের সদস্যগণ কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন।

জনপ্রশাসন মন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য ও শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী এবং তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার প্যানেল আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন। প্যানেল আলোচনা পর্বে মডারেটর ছিলেন বিসিএস প্রশাসন একাডেমির রেক্টর (সচিব) ড. মো. ওমর ফারুক।

এ সময় প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, সাংবাদিকদের দাবি অনুযায়ী সাংবাদিকতার যোগ্যতা নির্ধারণের কিছু একটা থাকা দরকার।  সরকার যখনই এটা বলবে তখনই বলা হবে সরকার নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করছে। এজন্য এ বিষয়টি নিয়ে সাংবাদিকদেরই আওয়াজ তুলতে হবে। দেশে ও বিদেশের সব জায়গায় এ বিষয়ে লিখতে হবে। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে আপনাদের এ বক্তব্য তুলে ধরতে হবে যে এটা আপনারাই চান। সরকার সাংবাদিকদের দাবির সাথে একমত। সরকারের এ বিষয়ে কোনো অসুবিধা নেই। সরকার বিষয়টির সমাধান করবে।

তিনি এ সময় আরও জানান, সকল পেশাদার সাংবাদিকদের দাবি, সাংবাদিকদের একটা সংজ্ঞা নির্ধারণ করা হোক, একটা পরীক্ষার ব্যবস্থা থাকুক, একটা সংজ্ঞায়ন থাকুক কে সাংবাদিক, কে সাংবাদিক না। সাংবাদিকরাই বলছেন সাংবাদিকদের তালিকা থাকা উচিত। কেন বলছেন, কারণ অনেক অপেশাদার ঢুকে পড়েছে এ কমিউনিটিতে। যার দ্বারা সাংবাদিকরাই সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত। কিন্তু যখনই সরকার বলবে তালিকা তৈরি করা হচ্ছে, তখন আবার আরেক গোষ্ঠী বলে তালিকা কেন তৈরি হবে সাংবাদিকদের। 

প্রতিমন্ত্রী এ সময় আরও বলেন, অপতথ্যের বিপক্ষে তথ্যের লড়াইটা খুব জরুরি। তথ্য এবং অপতথ্যের লড়াই এখনও চলছে। প্রশিক্ষণের মাধ্যমে অপতথ্য রোধে সাংবাদিকদের ভূমিকা রাখার সুযোগ রয়েছে।

তিনি যোগ করেন, মুক্তিযুদ্ধের শক্তি বিভিন্ন সময়ে আক্রান্ত হয়েছে অপপ্রচার ও মিথ্যাচার দ্বারা। যেখানে সত্য থেমে যায়, সেখানে অসত্য ও মিথ্যাচার জায়গা করে নেয়। 

সাইবার নিরাপত্তা আইন প্রসঙ্গে এ সময় প্রতিমন্ত্রী বলেন, শুধু সাইবার নিরাপত্তা আইনই নয়, যে কোন আইনের অপব্যবহারের বিপক্ষে সবাই মিলে ঐক্যবদ্ধভাবে আমাদের দাঁড়াতে হবে। সরকার মোটেও চায় না কোন আইনের অপব্যবহারের মাধ্যমে নির্দোষ ব্যক্তি ক্ষতিগ্রস্ত হোক।

আরও খবর



ইবিতে অছাত্র দ্বারা শিক্ষকদের লাঞ্ছনার প্রতিবাদে মানববন্ধন

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৭৩জন দেখেছেন

Image
সাব্বির খান, ইবি প্রতিনিধি:ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) অছাত্র দ্বারা উপাচার্যের কার্যালয়ে শিক্ষক লাঞ্চনার ঘটনায় প্রতিবাদ জানাতে মানববন্ধন করেছে শিক্ষককেরা। সোমবার ( ১২ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১ টার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব ম্যুরালের সামনে এ মানববন্ধন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রগতিশীল চেতনায় বিশ্বাসী শিক্ষকদের সংগঠন শাপলা ফোরাম।

এসময় শাপলা ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্মান, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মোঃ রবিউল হোসেন, সহসভাপতি অধ্যাপক ড. মোঃ আনিছুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সহযোগী অধ্যাপক জয়শ্রী সেন, সদস্য অধ্যাপক ড. মোঃ মাহবুবর রহমান, অধ্যাপক ড. মোঃ মাহবুবুল আরফিন ও অধ্যাপক ড. তপন কুমার জোদ্দার, অধ্যাপক  ড. শেলীনা নাসরিনসহ প্রায় অর্ধশত শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন। 

এসময় শাপলা ফোরামের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. রবিউল হোসেন বলেন, 'গত ৬ ফেব্রুয়ারী উপাচার্যের সাথে কথা বলতে গেলে অছাত্ররা হঠাৎ উপাচার্য কার্যালয়ে প্রবেশ করে গলিগালাজ শুরু করে। পরে এ বিষয়ে উপাচার্যের হস্তক্ষেপ চেয়েছিল শাপলা ফোরাম। কিন্তু প্রশাসনের নীরব ভূমিকা পালন করায় আমরা মানববন্ধন করতে বাধ্য হয়েছি।'

শাপলা ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্মান বলেন, 'আমরা গত ১১ ফেব্রুয়ারি উপাচার্যের সাথে দেখা করে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছিলাম। কিন্তু তিনি কোন পদক্ষেপ নেননি। তাই ফোরামের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মানববন্ধনে করছে শিক্ষকেরা। শিক্ষকদের লাঞ্চনার বিচার নিশ্চিত না হলে পরবর্তীতে কঠোর কার্যক্রম হাতে নেবে প্রগতিশীল শিক্ষক সংগঠন শাপলা ফোরাম।'

আরও খবর

বিনামূল্যে বই পেল ২৬৬ কলেজ শিক্ষার্থী

শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




খাগড়াছড়িতে পুনাকের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসকে কেন্দ্র করে “বই পাঠ” উৎসব

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৪০জন দেখেছেন

Image

জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:২১শে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসকে সামনে রেখে খাগড়াছড়ি পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি পুনাক এর উদ্যােগে প্রথমবারের মতো  “বই পাঠ” উৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

রবিবার (১৮ই ফেব্রুয়ারি) দুপুরের দিকে খাগড়াছড়ি পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি পুনাক এর উদ্যােগে পুলিশ লাইন্স স্কুলে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসকে সামনে রেখে  প্রথমবারের মতো  “বই পাঠ” উৎসব এর উদ্বোধন করেন খাগড়াছড়ি  জেলার পুলিশ সুপার  মুক্তা ধর পিপিএম (বার) ।

এসময় খাগড়াছড়ি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো.জসীম উদ্দিন, খাগড়াছড়ি সদর সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ মো.তফিকুল আলম সহ প্রধান শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন।

শিক্ষার্থীদেরকে দুটি দলে (৬ষ্ঠ - ৮ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের নিয়ে জুনিয়র টিম এবং ৯ম ও ১০ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের নিয়ে সিনিয়র টিম) ভাগ করেন। তিনি নির্ধারিত দুটি দলের জন্য দুটি বই পাঠ করার জন্য নির্ধারণ করে দেন। সিনিয়র টিমকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের লেখা “কারাগারের রোজনামচা” এবং জুনিয়র টিমকে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের স্বপ্নদ্রষ্টা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মুজিবকন্যা শেখ হাসিনার লেখা “আমাদের ছোট রাসেল সোনা” নামক বইগুলো পাঠ করার জন্য প্রদান করা হয়। বই পাঠ শেষে শিক্ষার্থীদেরকে পাঠ্য বিষয় থেকে ১০টি করে প্রশ্ন লিখতে বলা হয়। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে খাগড়াছড়ি জেলার  পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার) বলেন,
বাংলাকে মাতৃভাষা হিসেবে পেতে বুকের রক্ত দিয়েছেন আমাদের ভাষা শহীদগণ। তাঁদের এই ত্যাগের যথার্থ সম্মান প্রদর্শন করতে বাংলা ভাষা চর্চার ক্ষুদ্র প্রয়াস হিসেবে মূলত শিক্ষার্থীদের মাঝে বই পড়ার আগ্রহ সৃষ্টি করার লক্ষ্যেই  এই বই পাঠ উৎসবের জানিয়ে তিনি আরো বলেন,বাংলাদেশ পুুলিশের” পক্ষ থেকে প্রথমবারের মতো খাগড়াছড়ি জেলার প্রতিটি উপজেলায় এই ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজন করেন।

আরও খবর

সংরক্ষিত নারী আসনে সবার মনোনয়নপত্র বৈধ

সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




উপজেলা চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনের জন্য দেওয়ান আতিকুর রহমান আখিঁর প্রার্থীতা ঘোষনা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ৩৪১জন দেখেছেন

Image

মোঃ আব্দুল হান্নানঃ- আসন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর নাসিরনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সমাজ সেবক,দানবীর,শিক্ষানুরাগী, রাজনীতিবিদ ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী দেওয়ান আতিকুর রহমান আঁখি উপজেলা চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীতা ঘোষনা করেছেন।

আঁখি  উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের শংকরাদহ গ্রামের ঐতিহ্যবাহী দেওয়ান পরিবারের মৃত দেওয়ান মশিউর রহমানের সুযোগ্য সন্তান। আখিঁ আসন্ন ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী হিসেবে উপজেলার সর্বস্তরের জনগণের দোয়া, আর্শিবাদ ও সমর্থন প্রত্যাশী।


আখিঁ  ১৯৭৩ সালের ২রা ফেব্রুয়ারী ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার শংকরাদহ গ্রামের ঐতিহ্যবাহী দেওয়ার পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন। তার পিতার নাম মৃত দেওয়ান মশিউর রহমান মাতার নাম দেওয়ান হাজী হেনা বেগম। তার পিতা ও একজন সমাজ সেবক ও রাজনীতিবিদ ছিলেন। তিনি  ঐতিহ্যবাহী হরিপুর ইউনিয়ন পরিষদের সুনামধন্য চেয়ারম্যান ছিলেন


৬ ভাই ১বোনের মাঝে  আখিঁ ৪র্থ। আখিঁ ১৯৯০ সালে ব্রাহ্মণবাড়ীয়া অন্নদা সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এস, এস, সি,১৯৯২ সালে ব্রাহ্মণবাড়ীয়া সরকারী কলেজ থেকে এইচ, এস,সি ও ১৯৯৪ সালে উক্ত কলেজ থেকে বি, এস, এস পাস করেন। পরবর্তীতে তিনি বিভিন্ন ব্যবসা বানিজ্য, ও জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান ও তার সুযোগ্য কন্যা দেশ রত্ন শেখ হাসিনার আদর্শে অনুপ্রানিত হয়ে রাজনীতি ও মানবসেবায় নিজেকে মনোনিবেশ করেন। বর্তমানে তিনি ব্রাহ্মণবাড়ীয়া সদর উপজেলা শাখার মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগের সহ- সভাপতি এবং একাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান। 


ছোট বেলা থেকেই আঁখি নিজেকে মানব সেবায় নিয়োজিত করেন। বর্তমানে তিনি বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়মূলক কর্মকান্ড ও মানবসেবার সাথে জড়িয়ে এলাকার বহু নিরীহ ও অসহায় মানুষের কাছে দাড়িয়ে এলাকার বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজে অগ্রনী ভূমিকা পালন করে আসছেন।


আখিঁ ৯০ এর দশকে ব্রাহ্মনবাড়িয়া সরকারী কলেজ ছাত্রলীগের সদস্য হয়ে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে অগ্রনী ভূমিকা পালন করেন। ইতিমধ্যে তিনি মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষিত পরিবেশ উন্নয়ন ও জলবায়ুর দুষণ রোধের লক্ষ্যে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন সহ তার নিজ  ইউনিয়নে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা চৌধুরী মোয়াজ্জম আহম্মদকে প্রধান অতিথি করে ৪ হাজার বিভিন্ন ফলজ ও কাটের গাছের ছাড়া বিতরণ করেন।


 তিনি নিজ উদ্যোগে ও অর্থায়নে এলাকার বহু রাস্তা ঘাঠের উন্নয়ন করেছেন। এলাকার দরিদ্র ও হত দরিদ্র রোগীদের নিজ অর্থায়নে চিকিৎসা সেবা ও অসহায় ছেলে মেয়েদের বিবাহের ব্যবস্থা তাছাড়াও এলাকায় স্বাস্থ্যসম্মত বহু সেনিটেশনের ব্যবস্থা করেছেন । ইতি মধ্যে তিনি পি,এস,সি ও জে, এস,সির ১৫০ জন মেধাবী ছাত্র ছাত্রীর মাঝে বৃত্তি ও সম্মাননা স্বারক প্রদান করেন। তাছাড়াও দেওয়ান আতিকুর রহমান আখিঁ হিন্দু ও মুসলমানদের বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান সহ বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠানে আর্থিক সহায়তা করে যাচ্ছেন।


 তিনি শংকরাদহ হাফিজিয়া মাদ্রাসার পরিচালক থেকে নিজ অর্থায়নে প্রতিষ্ঠানটি পরিচালনা করে আসছেন। অত্র মাদ্রাসার ছাত্র ছাত্রীদের বিনামূল্যে পড়ানোর ব্যবস্থা করেছেন। বর্তমানে তিনি নাসিরনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী। এলাকার বিভিন্ন মহলের ধারনা তিনি উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে  তার দ্বারা উপজেলার রাস্তাঘাট,শিক্ষারমান সহ বিভিন্ন উন্নয়ন সম্ভব।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর